উন্নত যুবশক্তিই এগিয়ে নিয়ে যাবে বাংলাদেশকে — all-banglanews
বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
হোম / বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি / উন্নত যুবশক্তিই এগিয়ে নিয়ে যাবে বাংলাদেশকে

উন্নত যুবশক্তিই এগিয়ে নিয়ে যাবে বাংলাদেশকে

উন্নত যুবশক্তিই এগিয়ে নিয়ে যাবে বাংলাদেশকে
উন্নত যুবশক্তিই এগিয়ে নিয়ে যাবে বাংলাদেশকে

বর্তমান যুগকে বলা হয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির যুগ। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে উৎকর্ষ ব্যক্তিরাই তাদের দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে। একটি দেশকে উন্নত করতে হলে সে দেশের সিংহভাগ যুবসমাজের আইটি ক্ষেত্রে শক্তিশালী ভূমিকা রাখতে হবে। আইটি সমৃদ্ধ যুবসমাজ চাকরির বাজারে বিশেষ সুবিধা লাভ করে থাকে।
২০০৪ সালে ফেসবুক আবিষ্কার হওয়ার পর তথ্য-প্রযুক্তির ক্ষেত্রে এক অনন্য প্রবাহমানতা লক্ষ্য করা যায়। ফেসবুকের মাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত সহজেই জানা যায়, চলমান ঘটনাসমূহ, সহিংসতা, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, বিভিন্ন ধরনের ইস্যু সম্পর্কে জানা যায় খুবই সহজভাবেই। ফেসবুকে অনেকদিন দেখা না হওয়া বন্ধুর সাথে ভার্চুয়ালভাবে ভিডিও চ্যাট, ম্যাসেজিংও করা যায়।
গুগল আবিষ্কার হওয়ার পর তথ্য-প্রযুক্তি ক্ষেত্রে আরও উৎকর্ষতা সৃষ্টি হয়। সৃষ্টি হয় বিভিন্ন অজানা জিনিস সম্পর্কে জানার প্রতি অসাধারণ স্পৃহা। পৃথিবীর যেকোনো জিনিস সম্পর্কে সার্চ দিলে গুগল তা খুব সহজ ও কম সময়ের মধ্যে খুঁজে বের করে গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দেয়। শিক্ষা ক্ষেত্রেও গুগলের অবদান মোটেও হেয় করার মত নয়। বিভিন্ন বিষয়ের বিস্তারিত বর্ণনা, এসাইনমেন্ট কন্টেন্ট, স্লাইডসহ যাবতীয় তথ্য পাওয়া যায় মুহূর্তের ভিতর। তাই মানুষ বর্তমান গুগলের প্রতি এত আসক্ত। যুবসমাজ গুগল ব্যবহার করে বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত জ্ঞান লাভ করছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে বর্তমানে ওয়াইফাই সুবিধা থাকার কারণে শিক্ষার্থীরা খুব সহজেই তাদের প্রয়োজনীয় ইনফরমেশন পাচ্ছে ক্ষণিকের মধ্যেই। তারা বিভিন্ন তথ্য সম্পর্কে জানছে এবং এই বিস্তারিত জ্ঞান তাদের বহিঃবিশ্বের মানুষের সাথে তাল মেলাতে সাহায্য করছে।
বাংলাদেশে ফেসবুক ব্যবহারীর সংখ্যা প্রায় দশ কোটির উপরে। তাছাড়া অন্য ধরনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হোয়াটস অ্যাপ, ভাইভার, টুইটার, ম্যাসেনজার ব্যবহারকারীর সংখ্যা কোটি কোটি। এই বিপুল সংখ্যা জনশক্তি তথ্য-প্রযুক্তিতে উন্নত হচ্ছে খুব তাড়াতাড়ি। তথ্যপযুক্তিতে যে শুধু সুবিধাই আছে তাই নয় অনেকগুলো অসুবিধাও আছে বটে। তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে অনেকে ভূয়া সংবাদ প্রচার করে জনগণের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার করে করছে নানান অপকর্ম। সাম্প্রতিক সময়ের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলার সাম্প্রদায়িক সহিংসতা এবং কক্সবাজারের রামুতে অবস্থিত বিখ্যাত বৌদ্ধ মন্দিরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে সহিংসতা সৃষ্টি করা হয় এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে।
বর্তমানে আমাদের বাংলাদেশ বিভিন্ন দিক দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। তথ্য-প্রযুক্তি খাতে বরাদ্দকৃত ব্যয়ের পরিমাণও বাড়ানো হয়েছে বাজেটের মাধ্যমে। দেশের বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে তৈরি করা হয়েছে আধুনিক মানসম্মত ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব। যে ল্যাবের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা আইটি ক্ষেত্রে দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে উঠছে। তাছাড়া জেলা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের কম্পিউটার ল্যাবের মাধ্যমে যুব ও যুবারা পাচ্ছে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা। ফলে তথ্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

মো. ওসমান গনি শুভ
শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।
মোবাইল নং- ০১৭৮২ ৭০৯৭১৩

চেক করুন

একশ দিন পর শুরু হতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ

একশ দিন পর শুরু হতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ

ঠিক একশ’ দিন পর শুরু হতে যাচ্ছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ আসর আইসিসি বিশ্বকাপ। আগামী ৩০ মে …

মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ডিএমপির নিরাপত্তামূলক কর্মসূচি

মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ডিএমপির নিরাপত্তামূলক কর্মসূচি

একুশে ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০১৯ যথাযথ ও সুশৃঙ্খলভাবে উদযাপন উপলক্ষে ঢাকা মেট্রোপলিটন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *