চিকিৎসকের আত্মহত্যা : স্ত্রীসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা — all-banglanews
সোমবার, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
হোম / অপরাধ / চিকিৎসকের আত্মহত্যা : স্ত্রীসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

চিকিৎসকের আত্মহত্যা : স্ত্রীসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

চিকিৎসকের আত্মহত্যা : স্ত্রীসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা
চিকিৎসকের আত্মহত্যা : স্ত্রীসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক মোস্তফা মোরশেদ আকাশের আত্মহত্যায় ‘প্ররোচনা’ দেয়ার অভিযোগে তার স্ত্রীসহ ৬জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। আজ শুক্রবার বিকালে বন্দরনগরীর চান্দগাঁও থানায় এ মামলা দায়ের করেন বলে আকাশের মা জোবেদা খানম। থানার ওসি আবুল বাশার মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দ-বিধির ৩০৬ ধারায় করা এ মামলায় চিকিৎসকের স্ত্রী তানজিলা হক চৌধুরী মিতু, তার মা শামীম শেলী, বাবা আনিসুল হক চৌধুরী, ছোট বোন সানজিলা হক চৌধুরী আলিশা, যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা প্যাটেল ও ডা. মাহবুবুল আলমকে আসামি করা হয়।
ওসি আবুল বাশার বলেন, আসামিরা মানসিক যন্ত্রণার মধ্য দিয়ে চিকিৎসক আকাশকে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দেয় বলে মামলায় অভিযোগ করেছেন বাদী। ৩২ বছর বয়সী আকাশ চট্টগ্রাম মেডিকেলের ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে কর্মরত ছিলেন। বৃহস্পতিবার ভোরে চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার বাসায় ইনজেকশনের মাধ্যমে নিজের শরীরে বিষ প্রয়োগ করে তিনি আত্মহত্যা করেন।
এদিকে একের পর এক বের হয়ে আসছে স্ত্রী তানজিলা হক চৌধুরী মিতু ও তার পরিবারের নানান কুকীর্তি। এমনকি পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে মিতু স্বীকার করেছে তার উগ্র জীবনযাপনসহ অন্ধকার জগতের নানা কথা। নাম প্রকাশ না করার শর্তে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের এক শীর্ষ কর্মকর্তা বলেন, গ্রেপ্তার হওয়ার পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মিতু উগ্র জীবনযাপনসহ নানা বিষয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে। এসব তথ্য যাচাই বাছাই করা হচ্ছে।
জানা যায়, চিকিৎসক আকাশের সাথে বিয়ের আগে দু’জনের ৬ বছর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ওই সময় একাধিক সম্পর্কে জড়িয়ে ছিলেন মিতু। বিয়ের পরও বিভিন্নজনের সাথে সেই সম্পর্ক অব্যাহত রাখেন। এমনকি পড়াশোনার জন্য বিদেশে অবস্থানকালেও একাধিক ব্যক্তির সাথে বিবা হবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন মিতু। এছাড়া মিতুর উগ্র জীবনযাপনে সমর্থন, আকাশকে মানসিক নির্যাতনসহ নানা অভিযোগ উঠেছে মিতুর পরিবারের বিরুদ্ধে। আকাশের ছোট ভাইয়ের বন্ধু তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী অভিযোগ করেন, আকাশের আত্মহত্যার জন্য যতকুটু মিতু দায়ী, তার চেয়ে বেশি দায়ী তার পরিবার। তাদের আমানুষিক নির্যাতনের কারণেই আকাশ আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছেন।
তিনি অভিযোগ করেন, মিতুর ছোট ভাই আরমান লিউকোমিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার পর নিজেদের আর্থিক অবস্থা গোপন করে ৮০ লাখ টাকা উত্তোলন করে। মিতুদের আর্থিক অবস্থা না জেনে ওই সময় তিনিসহ কয়েকজন টাকা উত্তোলনের নেতৃত্ব দেন। দেশের বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছাত্ররা এ টাকা উত্তোলন করে। কিন্তু আরমানের চিকিৎসার অর্ধেক টাকা চিকিৎসা ব্যয় না করে নিজেরাই আত্মসাত করেন।
আত্মহত্যার আগে ফেইসবুকে তিনি স্ত্রীর বিরুদ্ধে বিয়ে বহির্ভূত সম্পর্ক ছাড়াও প্রতারণার অভিযোগ করে যান। এর ‘প্রমাণ’ হিসেবে মিতুর সাথে তার ‘বন্ধুদের’ বেশ কিছু ছবিও তিনি ফেইসবুকে ছেড়ে যান। এর ভিত্তিতে পুলিশ বৃহস্পতিবার রাতে নন্দনকানন এলাকায় এক আত্মীয়র বাসা থেকে মিতুকে আটক করে। আকাশের অভিযোগের বিষয়ে থানায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।
এরপর শুক্রবার মিতুকে চট্টগ্রামের মহানগর হাকিম খায়রুল আমিনের আদালতে হাজির করা হলে বিচারক জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বলে আদালত পুলিশের সহকারী কমিশনার কাজী শাহাবুদ্দিন আহমেদ জানান।

এবিএন/এফএম

চেক করুন

বিপিও সম্মেলন শুরু হবে আজ

বিপিও সম্মেলন শুরু হচ্ছে আজ

দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক বাজারে আউট সোর্সিং খাতের অবস্থান তুলে ধরার লক্ষ্যে আজ রবিবার থেকে রাজধানীতে …

আজ পবিত্র শবেবরাত

আজ পবিত্র শবেবরাত

যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় আজ রবিবার দিবাগত রাতে সারাদেশে পবিত্র শবেবরাত পালিত হবে। হিজরি সালের শাবান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *