জেল থেকে ছাড়া পেয়ে বাড়ি ফিরেছেন জাহালম — all-banglanews
সোমবার, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
হোম / আদালত / জেল থেকে ছাড়া পেয়ে বাড়ি ফিরেছেন জাহালম

জেল থেকে ছাড়া পেয়ে বাড়ি ফিরেছেন জাহালম

জেল থেকে ছাড়া পেয়ে বাড়ি ফিরেছেন জাহালম
জেল থেকে ছাড়া পেয়ে বাড়ি ফিরেছেন জাহালম

ভুল আসামি হয়ে ৩ বছর কারাগারে থাকা পাটকল শ্রমিক নিরীহ জাহালম সব মামলা থেকে অব্যাহতি পেয়ে হাইকোর্টের মুক্তির নির্দেশের পর গতকালই রাতে মুক্তি পেয়ে নিজ গ্রামে ফিরেছেন। রবিবার দিবাগত মধ্যরাতে গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন জাহালম ওরফে জানে আলম। কারাগারের ফটক থেকে মুক্ত ভাইকে সাথে নিয়ে রাতেই টাঙ্গাইলের গ্রামে ফিরেন তারা। ছেলে শাহানূরের কাছ থেকে মা মনোয়ারা আগেই জেনে গেছিলেন, জাহালম জেল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। খবর পেয়ে অপেক্ষায় থাকেন মা মনোয়ারা। পৌঁছার পর জাহালমকে দেখে হাউমাউ করে কেঁদে উঠে জড়িয়ে ধরেন মনোয়ারা। সেখানে জাহালমের বোন শাহানা, তাসলিমাসহ আত্মীয়স্বজন ও প্রতিবেশীরাও উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এর সিনিয়র জেল সুপার সুব্রত কুমার বালা জানান, জাহালম ওরফে জানে আলমকে হাইকোর্টের নির্দেশে রবিবার দিবাগত রাত ১২টা ৫০ মিনিটের দিকে মুক্তি দেয়া হয়। তার আগে তাকে দেয়া আদালতের মুক্তির আদেশ মহা-কারাপরিদর্শকের দফতরের মাধ্যমে রাত ১২টা ৫মিনিটের দিকে কাশিমপুরের পৌঁছে। পরে আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাকে মুক্তি দেয়া হয়।
ভুল আসামি হয়ে ২৬ মামলায় প্রায় ৩ বছর কারাগারে থাকা পাটকল শ্রমিক নিরীহ জাহালমকে সব মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়ে গতকাল রবিবারই মুক্তির নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। সোনালী ব্যাংকের অর্থ জালিয়াতির অভিযোগে দুদকের করা সব মামলা থেকে নিরীহ জাহালমকে অব্যাহতি দিয়ে মুক্তি দিতে এ নির্দেশ দেয়া হয়। আদালত বলেন, ‘এক নির্দোষ লোককে ১ মিনিটও কারাগারে রাখার পক্ষে আমরা না।’
বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ রবিবার এ আদেশ দেয়। একই সাথে আদালত এই ভুল তদন্তের সাথে কারা জড়িত, তাদের চিহ্নিত করার নির্দেশ দিয়েছে। না হলে আদালত এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবে বলে আদেশে উল্লেখ করা হয়।
সোনালী ব্যাংকের প্রায় সাড়ে ১৮ কোটি টাকা জালিয়াতির অভিযোগে আবু সালেকের বিরুদ্ধে ৩৩টি মামলা হয়। এর মধ্যে ২৬টিতে জাহালমকে আসামি আবু সালেক হিসিবে চিহ্নিত করে অভিযোগপত্র (চার্জসিট) দেয় দুদক। চিঠি পাওয়ার পর দুদক কার্যালয়ে হাজির হয়ে ৫ বছর আগে জাহালম বলেছিলেন, তিনি সালেক নন। কিন্তু নিরীহ পাটকল শ্রমিক জাহালমের কথা সেদিন দুদকের কেউ বিশ্বাস করেনি। ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি দুদকের এসব মামলায় জাহালম গ্রেপ্তার হন। তিনি জেল খাটছেন, আদালতে হাজিরা দিয়ে চলেছেন।
গত ৩০ জানুয়ারি একটি জাতীয় দৈনিকে ‘স্যার, আমি জাহালম, সালেক না’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এ প্রতিবেদনটি ওইদিন এ হাইকোর্ট বেঞ্চের নজরে আনেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী অমিত দাশ গুপ্ত। শুনানি নিয়ে আদালত জাহালমের আটকাদেশ কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে স্বতঃপ্রণোদিত রুল জারি করে। একই সাথে নিরীহ জাহালমের গ্রেপ্তারের ঘটনার ব্যাখ্যা দিতে দুদক চেয়ারম্যানের প্রতিনিধি, মামলার বাদী দুদক কর্মকর্তা, স্বরাষ্ট্রসচিবের প্রতিনিধি ও আইনসচিবের প্রতিনিধিকে কাল ৩ ফেব্রুয়ারি স্বশরীরে আদালতে হাজির থাকার নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। এরই প্রেক্ষিতে গতকাল দুদক চেয়ারম্যানের প্রতিনিধি হিসেবে দুদকের মহাপরিচালক (তদন্ত), মামলার বাদী আব্দুল্লাহ আল জাহিদ, স্বরাষ্ট্রসচিবের (সুরক্ষা) প্রতিনিধি যুগ্ম সচিব সৈয়দ বেলাল হোসেন এবং আইন সচিবের প্রতিনিধি সৈয়দ মুশফিকুল ইসলাম আদালতে হাজির হন। বিনা দোষে জাহালমের কারাবন্দি থাকা এবং মামলায় ফাসানো নিয়ে শুনানিকালে আদালত বিভিন্ন মন্তব্য করে। আদালত বলেন, ‘এক নির্দোষ লোককে এক মিনিটও কারাগারে রাখার পক্ষে আমরা না।’ কালই তাকে মুক্তির নির্দেশ দেয়া হয়। সে অনুযায়ি পদক্ষেপ নেয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

এবিএন/এফএম

চেক করুন

বিপিও সম্মেলন শুরু হবে আজ

বিপিও সম্মেলন শুরু হচ্ছে আজ

দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক বাজারে আউট সোর্সিং খাতের অবস্থান তুলে ধরার লক্ষ্যে আজ রবিবার থেকে রাজধানীতে …

আজ পবিত্র শবেবরাত

আজ পবিত্র শবেবরাত

যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় আজ রবিবার দিবাগত রাতে সারাদেশে পবিত্র শবেবরাত পালিত হবে। হিজরি সালের শাবান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *