মাদারীপুরের শিবচর লকডাউন : বের হলেই শাস্তি – ABNWorld
ঢাকা । বুধবার, ৮ এপ্রিল, ২০২০, ২৫শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী
হোম / সারাদেশ / মাদারীপুরের শিবচর লকডাউন : বের হলেই শাস্তি

মাদারীপুরের শিবচর লকডাউন : বের হলেই শাস্তি

এবার মাদারীপুরের শিবচর লকডাউন

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে এবার মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার ওষুধ, কাঁচামাল, মুদি দোকান বাদে সব দোকানপাট ও গণপরিবহন বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। উপজেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জরুরি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বৈঠক শেষে আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আসাদুজ্জামান জরুরি সংবাদ সম্মেলন করে বিষয়টি সাংবাদিকদের জানান। তিনি জানান, করোনা প্রতিরোধে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ও ওষুধের দোকান ছাড়া উপজেলার সব হাটবাজার ও জনসমাগম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। একইসঙ্গে প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের না থেকে জন সাধারণকে অনুরোধ জানানো হয়।
শিবচর উপজেলার চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শামসুদ্দিন খান বলেন, পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত এই লকডাউন চলবে। এ সময়ের মধ্যে শিবচর উপজেলায় থেকে কেউ প্রবেশ করতে পারবেন না এবং সেখান থেকে বেরও হতে পারবেন না। মানুষ যাতে অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হতে না পারে সেটি নিশ্চিত করতে রাস্তায় পুলিশি টহল থাকবে। অতি প্রয়োজন ছাড়া কাউকে রাস্তায় পাওয়া গেলে জেল-জরিমানা করা হবে বলে জানান তিনি।
মাদারীপুরের শিবচর উপজেলা হচ্ছে বাংলাদেশের প্রথম জায়গা যেখানে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য লকডাউন করা হলো। এই উপজেলায় সম্প্রতি ৬৩৯ মানুষ ইতালি, গ্রিস, স্পেন কিংবা জার্মানি থেকে এসেছেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। গত ১৮ দিনে মাদারীপুরের শিবচর উপজেলায় ৬ শতাধিক প্রবাসী বাড়ি ফিরেছেন। এর মধ্যে হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন মাত্র ৮০ জন।
এর আগে সচিবালয়ে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক দেশের বিভিন্ন এলাকা প্রয়োজন অনুসারে লকডাউনের কথা জানান। তিনি বলেন, মাদারীপুর, ফরিদপুর ও শিবচর এলাকায় বেশি করে (প্রবাসী) দেখা যাচ্ছে। যদি পরিস্থিতির অবনতি ঘটে তাহলে আমরা লকডাউনের দিকে যাব। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ১৭ জন রোগীর মধ্যে বেশিরভাগ মাদারীপুর এলাকার, সেখানে কোয়ারেন্টিনে বেশি আছে বলে খবর পাচ্ছি, ওখানকার লোক বিদেশে থাকেও বেশি। সে জন্য ওই এলাকাটা মোর ভালনারেবল অবস্থায় আছে। আগামীতে যদি সত্যি (করোনা রোগী) বেড়ে যায়, তাহলে আমরা লকডাউন করব।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, চীন করোনা নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে লকডাউনের মাধ্যমে। অন্যান্য দেশও চীনকে ফলো করছে। আমাদের পরিস্থিতি যদি আরও অবনতি ঘটে, আমাদের কোনো এলাকা যদি বেশি আক্রান্ত হয়ে যায়, আমরা অবশ্যই সেই এলাকাকে লকডাউনে নিয়ে যাব। আরও যেখানে যেখানে প্রয়োজন হবে সেখানে সেখানে আমরা লকডাউনে চলে যাব। কারণ দেশের মানুষকে আমাদের রক্ষা করতে হবে করোনাভাইরাস থেকে।
মাদারীপুর জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, মাদারীপুরে ২১২ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও ২ জনকে ঢাকার আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত একজনের মৃত্যু নিশ্চিত করেছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)। আর ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৮ জন।
আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ড ওমিটারের ওয়েবসাইট অনুযায়ী, এ পর্যন্ত ১৭৬টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৯ হাজার। বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত করোনায় মৃতের সংখ্যা ৯ হাজার ১৪৯ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ২৩ হাজার ৮২ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৫ হাজার ৭৯২ জন।

এবিএনওয়ার্ল্ড/এফআর

চেক করুন

ঢাকা মহানগরীর ৭৩টি বস্তিতে ওএমএস’র চাল বিক্রি হচ্ছে

ঢাকা মহানগরীর ৭৩টি বস্তিতে ওএমএস’র চাল বিক্রি হচ্ছে

ঢাকা মহানগরীর ৭৩টি বস্তির ৩৯ হাজার ১৮০টি পরিবারের মধ্যে ১০টাকা কেজি দরে বিশেষ ওএমএস’র ৫ …

আরও ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে করোনা : মৃতের সংখ্যা ৮২ হাজার ছাড়িয়েছে

আরও ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে করোনা : মৃতের সংখ্যা ৮২ হাজার ছাড়িয়েছে

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মহামারী আরও ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে। প্রতিদিনই হু হু করে বাড়ছে …