কালো তালিকাভুক্ত ফেরদৌস : ছাড়তে বললো ভারত - all-banglanews
ঢাকা। শনিবার, ২ ভাদ্র, ১৪২৬; ১৭ আগস্ট, ২০১৯; ১৫ জিলহজ্জ, ১৪৪০
হোম / বিনোদন / কালো তালিকাভুক্ত ফেরদৌস : ছাড়তে বললো ভারত

কালো তালিকাভুক্ত ফেরদৌস : ছাড়তে বললো ভারত

কালো তালিকাভুক্ত ফেরদৌস : ছাড়তে বললো ভারত
কালো তালিকাভুক্ত ফেরদৌস : ছাড়তে বললো ভারত

ভিসা-সংক্রান্ত আচরণ লঙ্ঘন করে ভারতের লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেয়ায় বাংলাদেশের অভিনয়শিল্পী ফেরদৌস আহমেদের ভিসা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। একই সাথে অবিলম্বে ভারত ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে এবং তাকে কালো তালিকাভুক্ত করার কথাও জানিয়েছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এদিকে ফেরদৌসের এ ঘটনা পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে যথেষ্ট আলোড়ন তুলেছে। আলোচনা তুলেছে ঢাকাই শোবিজ পাড়ায়ও।
এ বিষয়ে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, ফেরদৌস আহমেদের ভিসা-সংক্রান্ত আচরণ লঙ্ঘনের প্রতিবেদন পাওয়ার পরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তার ভিসা বাতিল করেছে। এছাড়া তাকে দেশ ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সেই সাথে তাকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।
গতকাল সোমবার ফেরদৌসের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে ক্ষমতাসীন বিজেপির অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আজ মঙ্গলবার ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানায়। পশ্চিমবঙ্গের রায়গঞ্জে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসের সমর্থনে একটি রোড-শো’তে অংশ নেয়ার পর এ বিষয়ে অভিযোগ দেয় কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন দল।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশি নাগরিক ফেরদৌস আহমেদ ভিসার শর্ত লঙ্ঘন করেছেন বলে ইমিগ্রেশন ব্যুরোর কাছ থেকে রিপোর্ট পাওয়ার পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তার বিজনেস ভিসা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং অবিলম্বে তাকে ভারত ছাড়ার জন্য নোটিশ জারি করেছে। তাকে কালো তালিকাভুক্তও করা হলো।
রায়গঞ্জের ওই প্রচারণায় ফেরদৌস ছাড়াও ছিলেন টলিউডের নায়ক অঙ্কুশ হাজরা ও নায়িকা পায়েল সরকার। ফেরদৌস রোড-শোয়ে তৃণমূল প্রার্থী কানাইয়ালাকে ভোট দেয়ার আহ্বানও জানান। রায়গঞ্জ আসনে প্রচুর সংখ্যালঘু মুসলিমের বাস। জনসংখ্যার হারে মুসলিম বেশি। ওই আসনে বিজেপির প্রার্থী দেবশ্রী চৌধুরী, কংগ্রেসের প্রার্থী দীপা দাসমুন্সি আর সিপিএমের প্রার্থী বর্তমান বিদায়ী সাংসদ মোহাম্মদ সেলিম।
ফেরদৌসের অংশগ্রহণের পর তীব্র প্রতিবাদ করে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, তৃণমূল তো বিদেশি তারকা এনে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করেছে। এ ধরনের ঘটনা এর আগে দেখিনি। তিনি প্রশ্ন তুলেন, এভাবে ভারতের একটি রাজনৈতিক দলের নির্বাচনী প্রচারে বিদেশি তারকা আসতে পারেন? তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আইন মানেন না। ভোট কম পড়লে রোহিঙ্গাদের ডেকে আনবেন। কাল হয়তো ইমরান খানকে তৃণমূলের প্রচারে ডাকবেন। আমরা এই ঘটনার নিন্দা জানাই।
তবে এর পাল্টা জবাব দিয়েছিলেন তৃণমূলের নেতা মদন মিত্র। তিনি বলেছিলেন, বাংলাদেশের সাথে আমাদের অকৃত্রিম বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। তাই এটা বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কারণে হয়েছে। এর জন্য নির্বাচন আচরণবিধি লঙ্ঘনের কোনো প্রশ্ন নেই।

এবিএন/এফএম

চেক করুন

জাতীয় শোক দিবস পালন করছে বাঙালি জাতি

জাতীয় শোক দিবস পালন করছে বাঙালি জাতি

আজ বৃহস্পতিবার, ঐতিহাসিক ১৫ আগস্ট, যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালন করছে বাঙালি জাতি। স্বাধীনতার …

ঈদুল আযহার ছুটি শেষ খুলেছে অফিস : উপস্থিতি কম

ঈদুল আযহার ছুটি শেষ খুলেছে অফিস : উপস্থিতি কম

পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে ৩ দিনের সরকারি ছুটি শেষ হয়ে আজ বুধবার খুলেছে অফিস-আদালত। তবে …