জকোভিচকে হারিয়ে ফরাসী ওপেন চ্যাম্পিয়ন নাদাল – ABNWorld
ঢাকা । বুধবার, ২১ অক্টোবর, ২০২০, ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রবিউল আউয়াল, ১৪৪২ হিজরি
হোম / খেলাধুলা / জকোভিচকে হারিয়ে ফরাসী ওপেন চ্যাম্পিয়ন নাদাল

জকোভিচকে হারিয়ে ফরাসী ওপেন চ্যাম্পিয়ন নাদাল

জকোভিচকে হারিয়ে ফরাসী ওপেন চ্যাম্পিয়ন নাদাল

ফ্রেঞ্চ ওপেন টেনিসের রাজা বলা হয় স্পেনের রাফায়েল নাদালকে। সেই রাজার মাথাতেই শোভা পেল শিরোপার মুকুট। এ বছরের ফ্রেঞ্চ ওপেনেও চ্যাম্পিয়ন হলেন নাদাল। রবিবার রাতে টুর্নামেন্টের ফাইনালে দ্বিতীয় বাছাই নাদাল ৬-০, ৬-২ ও ৭-৫ গেমে হারিয়েছেন শীর্ষ বাছাই সার্বিয়ার নোভাক জকোভিচকে। ২ ঘণ্টা ৪১ মিনিট সময় নিয়ে জকোভিচকে সরাসরি সেটে হারিয়ে রেকর্ড ১৩তম বারের ফরাসি ওপেনের শিরোপার স্বাদ নেন নাদাল। সেই সাথে গ্র্যান্ড স্ল্যামের ইতিহাসে সর্বোচ্চ শিরোপা জয়ে সুইজারল্যান্ডের রজার ফেদেরারকে র্স্পশ করলেন তিনি। এখন ফেদেরার-নাদালের ২০টি করে গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা।
এবারের ফাইনালের আগে রোলাঁ গারোতে ১২টি শিরোপা ছিলো নাদালের। ১২বার ফাইনালে উঠে সবকটিতেই জিতেছেন তিনি। তাই জকোভিচের বিপক্ষে স্পষ্টভাবেই ফেভারিট ছিলেন নাদাল। কিছু পরিসংখ্যানে জকোভিচের চেয়ে পিছিয়েও ছিলেন তিনি। কিন্তু সেইসব পরিসংখ্যান, এই ফাইনালের জন্য মোটেও গুরুত্ব বহন করেনি। এছাড়া এবারের আসরে কোন সেট না হেরে ফাইনালে উঠেছেন নাদাল। তাই শিরোপা যে, নাদালই পাচ্ছেন সেটিও অনেকে ধরে নিয়েছেন।
ফেভারিটের তকমাটা যে বেশিই ছিল নাদালের। সেটি প্রমাণ করতে সময়ক্ষেপন করতে হয়নি নাদালকে। প্রথম সেট নাদাল জিতলেন ৬-০ গেমে। অর্থাৎ সেটের কোন গেমই হারেননি নাদাল। এগিয়ে গিয়ে সর্তক নাদাল। কারন জানতেন জকোভিচ ঘুঁড়ে দাঁড়ানোর ক্ষমতা রাখে। আরও বেশি তীব্র হয়ে উঠেন তিনি। আক্রমনের ধার বাড়িয়ে জকোভিচের উপর চাপ অব্যাহত রাখেন নাদাল। তাই প্রথম ৭ গেমে কোন জয়ই পাননি জকোভিচ। অবশেষে অষ্টম গেমে এসে এই সেটে জয়ের স্বাদ পান তিনি। কিন্তু শেষ মেষ সেটটি ৬-২ গেমেই জিতে নেন নাদাল।
২-০ গেমে এগিয়ে শিরোপায় ‘চুমু’ স্বপ্ন দেখতে শুরু করে দেন নাদাল। কিন্তু ম্যাচে ফিরতে মরিয়া হয়ে উঠেন জকোভিচ। দারুন লড়াইয়ে নাদালকে পরাভূত করার পথ তৈরি করতে থাকেন তিনি। কিন্তু নাছোরবান্দা নাদাল, জকোভিচের সাথে পাল্লা দিয়ে লড়াই করেন। ফলে হাড্ডহাড্ডি লড়াইয়ে জমে উঠে সেটটি। একসময় খেলার আবহ বলছিলো, সেটটি টাইব্রেকারে গড়াবে। কিন্তু না, সেটের শেষদিকে, নাদালের সাথে আর পেরে উঠতে না পেরে হারকে বরণ করে নেন জকোভিচ। এবার ৭-৫ গেমে সেট জিতে টানা চতুর্থবারের মত ফরাসির ওপেনের শিরোপা জয় নিশ্চিত করেন নাদাল। সেই সাথে ফ্রেঞ্চ ওপেনে ১শতম জয়ের মাইলফলক স্পর্শ করলেন ৩৪ বছর বয়সী নাদাল। ১৫ বছরে ১০২ ম্যাচে ১শ জয়ে নাদালের জয়ের হার ৯৮ দশমিক ০৪ শতাংশ। ঈর্শ্বনীয় বটে।
তাই তো ম্যাচ শেষে রোলাঁ গারোকে নিজের সবকিছু বলতে দ্বিধা করেননি নাদাল, ‘রোলাঁ গারো আমার কাছে সবকিছু। এখানে আমি কখনো হতাশ হইনি। আমার টেনিস ক্যারিয়ারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মূর্হুতগুলোর বেশিরভাগই আমি এখানে কাটিয়েছি, এ নিয়ে কোনো সংশয় নেই। আমার কাছে এখানে খেলাটাই সবচেয়ে বড় প্রেরণা। এখানে আসলে আমি আবেগপ্লুত হয়ে পড়ি। এই শহর, এই কোর্ট, এখানকার মাটির সাথে আমার যে ভালোবাসা, সেটা কখনো ভোলা যাবে না। সবাইকে সে জন্য অনেক-অনেক ধন্যবাদ। আবারো দেখা হবে, আবারো ভালো কিছুকে সঙ্গী করতে পারবো।’
রোলাঁ গারোর শিরোপা নাদালকে নিয়ে গেছে, গ্র্যান্ড স্ল্যামের পর্বতের চূড়ায়। সেখানে এতোদিন ধরেই একাই ছিলেন ফেদেরার। সর্বোচ্চ ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা ছিলো তার। এবার পর্বতের চূড়ায় ফেদেরার সঙ্গী হলেন নাদাল। কিন্তু ফাইনালে আগে ফেদেরারকে স্পর্শ করার চিন্তা মাথাতেই আসেনি নাদালের, সেটিও জানালেন তিনি, ‘অনেক কঠিন একটা বছর গেছে। এখানে জেতাটা আমার কাছে অনেক কিছু। সত্যি বলতে আমি আজ ২০তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের কথা চিন্তাও করিনি। ফেদেরারকে ছোঁয়ার কথাও ভাবিনি। আমি শুধু ভেবেছি, রোলাঁ গারোতে আরও একটি শিরোপা জয় নিয়ে। কারন এখানে কখনো আমার মন খারাপ হয়নি।’
নাদালের হাতে শিরোপা দেখে অভিনন্দন জানিয়েছে জকোভিচ। তিনি বলেন, তুমি দেখিয়েছো, মাটির কোর্টে তুমি কেন রাজা!! এখানকার ট্রফি তোমার হাতেই বেশি মানায়। তোমাকে অনেক-অনেক অভিনন্দন।
নিজের খেলায় অসন্তোষ প্রকাশ করে জকোভিচ বলেন, আজকের ম্যাচটা আমার জন্য অনেক বেশি কঠিন ছিল। নাদালের মত খেলোয়াড়ের সাথে এখানে খেলাটা আরও বেশি কঠিন। এছাড়া আমি যেভাবে খেলেছি, তাতে আমি মোটেও খুশি নই। আমার খেলায় অনেক ভুল ছিলো। তবে এটি ঠিক যে, আজ কোর্টে অনেক ভালো ও দুর্দান্ত এক খেলোয়াড়ের কাছেই হেরেছি আমি। এ বছর এটি প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা জয় নাদালের। ফরাসি ওপেনে টানা চতুর্থ ও রেকর্ড ১৩তম শিরোপা জিতলেন তিনি। এছাড়া চারটি ইউএস ওপেন, দু’টি উইম্বলডন ও একটি অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে জিতেছেন নাদাল।

এবিএনওয়ার্ল্ড/এফআর

চেক করুন

বিএনপির নেতৃত্বের পদত্যাগ করা উচিত : সেতুমন্ত্রী

বিএনপির নেতৃত্বের পদত্যাগ করা উচিত : সেতুমন্ত্রী

আন্দোলন ও নির্বাচনে ব্যর্থতার জন্য বিএনপির নেতৃত্বের পদত্যাগ করা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ …

ডিএমপির ৪ কর্মকর্তার বদলি

ডিএমপির ৪ কর্মকর্তাকে বদলি

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সহকারি পুলিশ কমিশনার পদমর্যাদার ৪জন কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে। ডিএমপি’র এক …