দণ্ডাদেশ স্থগিত : খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ল – ABNWorld
ঢাকা । মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১২ই সফর, ১৪৪২ হিজরি
হোম / রাজনীতি / দণ্ডাদেশ স্থগিত : খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ল

দণ্ডাদেশ স্থগিত : খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ল

দণ্ডাদেশ স্থগিত : খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ল

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল- বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার দণ্ডাদেশ ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে পরবর্তী ৬ মাসের জন্য স্থগিত করেছে সরকার। ফলে শর্তসাপেক্ষে দেয়া তার মুক্তির মেয়াদ বাড়ল আরও ৬ মাস। আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন এই তথ্য জানান। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে সরকার তার সাজা স্থগিত করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই আবেদন অনুমোদন করেছেন। তবে এসময় খালেদা জিয়াকে বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে হবে। বিদেশে যেতে পারবেন না। এর আগে গত ২৪ মার্চ থেকে ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিএনপি চেয়ারপারসনের দণ্ডাদেশ স্থগিত করেছিলো সরকার।
প্রসঙ্গত শর্ত সাপেক্ষে জেল থেকে মুক্তির পর ৭৫ বছর বয়সী খালেদা জিয়া বর্তমানে গুলশানে তার ভাড়া বাসা ফিরোজায় রয়েছেন। তিনি আর্থারাইটিসের ব্যথা, ডায়াবেটিস, চোখের সমস্যাসহ বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যায় ভুগছেন।২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় ৫ বছরের সাজায় কারাজীবন শুরু করেন খালেদা জিয়া। পরে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায়ও তার সাজার রায় হয়। তার বিরুদ্ধে আরও ৩৪টি মামলা রয়েছে।
খবরে প্রকাশ, দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সাজার কার্যকারিতা আগের ২ শর্তে আরও ৬ মাসের জন্য স্থগিত করেছে সরকার। তার পরিবারের আবদনে আইন মন্ত্রণালয়ের সম্মতি পাওয়ার পর সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের অনুমোদন নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ মঙ্গলবার এ বিষয়ে নির্বাহী আদেশ জারি করেছে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পরিবার তার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেছিল। এ বিষযে আইন মন্ত্রণালয় থেকে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর আমাদের কাছে সুপারিশ এসেছে। তাতে কিছুক্ষণ আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদন দিয়েছেন। শর্ত অনুযায়ী, এই সময়ে খালেদা জিয়াকে ঢাকায় নিজের বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে হবে। অর্থাৎ তিনি বিদেশে যেতে পারবেন না।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, করোনার কারণে গত ৬ মাস খালেদা জিয়ার পরিবার তার কোন চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পারেননি। এই বিবেচনায় তার মুক্তির মেয়াদ ৬ মাস বাড়ানো হয়েছে। বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা দেশে সম্ভব না, তাকে বিদেশ নেয়া দরকার। সাজা স্থগিতের জন্য দেয়া দুটি শর্তকে অমানবিক বলেছেন বিএনপি নেতারা। এই বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এগুলো কোর্টের বিষয়। সেখান থেকে তাকে অনুমতি দেবে কি না, সেটা কোর্ট সিদ্ধান্ত নেবে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তারা আবেদনে অনেক কিছুই চেয়েছেন। তবে প্রধানমন্ত্রী যেগুলো বিবেচনা করেছেন সেগুলো আপনাদের জানালাম। এছাড়া তিনিতো এখনও জেলে বন্দি, শুধু বাসায় অবস্থান করছেন। তিনি বলেন, আমাদের যেটুকু করণীয়, সেটা তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে করেছি। এছাড়া আমাদের কোনো ডাক্তার বলেননি যে বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসাসেবা বাংলাদেশে চলবে না।
দুর্নীতির ২ মামলায় দণ্ডিত সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে গত ২৫ মার্চ নির্বাহী আদেশে সাময়িক মুক্তি দেয় সরকার। তার দণ্ডের কার্যকারিতা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করা হলে তিনি কারামুক্ত হন। ওই মুক্তির মেয়াদ ২৪ সেপ্টেম্বর শেষ হওয়ার কথা ছিল। তার আগেই বিএনপি চেয়ারপারসনের পরিবারের পক্ষ থেকে তার ভাই শামীম এস্কেন্দার গত মাসে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে একটি আবেদন করেন। তাতে তার অসুস্থ বোনের কারামুক্তির পদক্ষেপ নিতে সরকারকে আহ্বান জানান তিনি।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, প্রথমবার খালেদা জিয়াকে ছাড়ার সময় নিয়ম অনুযায়ী আইন মন্ত্রণালয়ের সুপারিশ বিবেচনায় নিয়েছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তাই শামীমের আবেদনও পাঠানো হয় সেখানে। এই প্রসঙ্গে গত ৩ সেপ্টেম্বর আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, আগের শর্তেই খালেদা জিয়ার সাজা আরও ৬ মাস স্থগিত রাখার বিষয়ে সম্মতিসূচক মতামত দিয়েছে আইন মন্ত্রণালয়।

এবিএনওয়ার্ল্ড/আলিফ

চেক করুন

দেশ ও দেশের মানুষের জন্য ভাল কিছু করার প্রত্যাশা প্রধানমন্ত্রীর

দেশ ও দেশের মানুষের জন্য ভাল কিছু করার প্রত্যাশা প্রধানমন্ত্রীর

দেশ ও দেশের জনগণের জন্য ভাল কিছু করে যাওয়ার আকাঙ্খা ও প্রত্যাশা পুণর্ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী …

দেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়াল ৫ হাজার

দেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়াল ৫ হাজার

দেশে করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত মারা যাওয়া ৫ হাজার ১৯৩ জনের মধ্যে ৪ হাজার ১৮ জনই …