বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদ ফাঁসির সেলে : চলছে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের প্রক্রিয়া – ABNWorld
ঢাকা । সোমবার, ১ জুন, ২০২০, ১৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৯ই শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী
হোম / আদালত / বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদ ফাঁসির সেলে : চলছে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের প্রক্রিয়া

বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদ ফাঁসির সেলে : চলছে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের প্রক্রিয়া

বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদ ফাঁসির সেলে : চলছে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের প্রক্রিয়া

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনি ও বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামী ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) আব্দুল মাজেদকে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ফাঁসির সেলে রাখা হয়েছে। আজ বুধবার কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুবুল ইসলাম গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী আব্দুল মাজেদকে কারাগারে নিয়ে আসার পরপরই যাবতীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে তাকে কয়েদীর ড্রেস পরিয়ে সরাসরি ফাঁসির সেলে নেয়া হয়। এদিকে আব্দুল মাজেদের গ্রেফতার হওয়ার বিষয়ে মঙ্গলবার আইনমন্ত্রী আনিসুল হক গণমাধ্যমে জানিয়েছেন. ফাঁসির দণ্ড কার্যকরে আইনি প্রক্রিয়া এরই মধ্যে শুরু হয়েছে। বঙ্গবন্ধু স্বাধীন বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা। তাঁকে সপরিবারে হত্যা করে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ রাষ্ট্রের মর্মমূলে আঘাত করে খুনিরা। এ ধরনের ঘৃণ্য খুনির শাস্তি যত দ্রুত কার্যকর হয় দেশ ও জাতির জন্য তা ততই মঙ্গল। তবে এর আগে সব ধরণের আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।
মাজেদের ফাঁসির রায় কার্যকর করার আগে দেশেল প্রচলিত আইন ও নিয়ম অনুযায়ী কী কী প্রক্রিয়া সারতে হবে এব আনুষ্ঠানিকতা শেষ করতে কতদিন সময় লাগতে পারে জানতে চাইলে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার বিচারে রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান কৌঁসুলি প্রয়াত সিরাজুল হকের সহযোগী আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, কোন আসামির মৃত্যুদণ্ডের রায় কার্যকর করার আগে সংশ্লিষ্ট বিচারিক আদালত থেকে তার নামে মৃত্যু পরোয়ানা জারি করতে হয়। লাল শালু কাপড়ে মুড়ে সেই মৃত্যু পরোয়ানা পৌঁছে দেয়া হয় কারাগারে।
মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, আমরা যত দ্রুত সম্ভব ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ আদালত থেকে মৃত্যু পরোয়ানা জারির আবেদন করব। তারপর সেটা কারাগারে যাবে। কারা কর্তৃপক্ষ এরপর কারাবিধি অনুযায়ী দণ্ড কাযর্কর করার উদ্যোগ নেবে। এতদিন পলাতক থাকার পরও এখন তিন মৃত্যুদণ্ডের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবেন কি না জানতে চাওয় হলে তিনি বলেন, সে সময় অনেক আগেই পার হয়ে গেছে। আপিল করতে বিলম্বের জন্য কোন যৌক্তিক কারণ মাজেদ দেখাতে পারবেন না। সুতরাং কোন সুযোগ তিনি পাচ্ছেন না।
এদিকে দেশের প্রখ্যাত আইনজীবীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, সাংবিধানিক অধিকার প্রয়োগ করে ফাঁসির দড়ি এড়ানোর জন্য বঙ্গবন্ধুর খুনি আবদুল মাজেদ একটি মাত্র চেষ্টা করতে পারবেন। আর তা হল রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা প্রর্থনা। আদালত মৃত্যু পরোয়ানা জারি করে কারাগারে পাাঠানোর পর কারা কর্তৃপক্ষ তা আসামিকে পড়ে শোনাবে। তখন আসামি বা তার পরিবারের সদস্যরা রাষ্ট্রপতির কাছে তার প্রাণভিক্ষা চাইতে পারবেন। কারা বিধিতে প্রাণভিক্ষার আবেদন করার জন্য ৭ থেকে ২১ দিন সময় বেঁধে দেয়া রয়েছে। আর বঙ্গবন্ধুর এই খুনি তার অপরাধের জন্য ক্ষমা চেয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন না করলে বা তার আবেদন প্রত্যাখ্যাত হলে কারা কর্তৃপক্ষের সামনে ফাঁসি কার্যকরে আর কোন বাধা থাকবে না।
প্রসঙ্গত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বরখাস্ত হওয়া ক্যাপ্টেন আব্দুল মাজেদ ২৩ বছর ধরে কলকাতায় আত্মগোপনে ছিলেন। গত ১৬ মার্চ তিনি ঢাকায় আসেন। এরপর সোমবার দিবাগত ভোর রাতে গাবতলী থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর পর মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ১টায় মাজেদকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে হাজির করে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। এরপর তাকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।

এবিএনওয়ার্ল্ড/নওরতন

চেক করুন

অভ্যন্তরীণ রুটে আজ থেকে পুণরায় বিমান চলাচল শুরু

অভ্যন্তরীণ রুটে আজ থেকে পুণরায় বিমান চলাচল শুরু

বিশ্বব্যাপী মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী কোভিড-১৯ (করোনা ভাইরাস)-এর কারণে বিগত ২ মাসেরও বেশি সময় …

২ মাস পরে আল আকসা মসজিদের দরোজা খুলে দেয়া হল আজ

২ মাস পরে আল আকসা মসজিদের দরোজা খুলে দেয়া হল আজ

করোনা ভাইরাসের কারণে ২ মাসের বেশী সময় বন্ধ থাকার পরে মুসলমানদের অন্যতম পবিত্র স্থান আল …