বাবা মির্জা ফখরুলের জন্মদিন : মেয়ের আবেগঘন স্ট্যাটাস – ABNWorld
ঢাকা । বৃহস্পতিবার, ৪ মার্চ, ২০২১, ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২০শে রজব, ১৪৪২ হিজরি
হোম / রাজনীতি / বাবা মির্জা ফখরুলের জন্মদিন : মেয়ের আবেগঘন স্ট্যাটাস

বাবা মির্জা ফখরুলের জন্মদিন : মেয়ের আবেগঘন স্ট্যাটাস

বাবা মির্জা ফখরুলের জন্মদিন : মেয়ের আবেগঘন স্ট্যাটাস

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের ৭৩তম জন্মদিন উপলক্ষে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন তার বড় মেয়ে শামারূহ মির্জা। মির্জা ফখরুল-কন্যা শামারূহ মির্জার ফেসবুক স্ট্যাটাস তুলে ধরা হলো:
‘আমরা দুই বোন যখন ছোট্ট ছিলাম, আমার বাবা চাকরি ছেড়ে, পুরো পরিবারকে ঢাকায় ফেলে ঠাকুরগাঁয়ে চলে যান। এক-দুই দিন না, বছরের পর বছর আমরা বড় হয়েছিলাম বাবাকে কাছে না পেয়ে, কারণ তিনি চেয়েছিলেন বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের জন্য কিছু করবেন। খুব কঠিন ছিলো আমাদের বড়ো হওয়া। আমরা কষ্ট পেয়েছি, বিরক্ত হয়েছি কিন্তু আমার বাবাকে কোনো দিন নিরাশ হতে দেখিনি। ৩০ বছর পেড়িয়ে গেল, আমরা টুক টুক করে বড় হলাম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছি, পিএইচডি করেছি, চষে বেরিয়েছি পৃথিবী। প্রায়ই ভাবি, আমার বাবাও শিক্ষক ছিলেন, তার জন্যেও আমার এই জীবনটা সম্ভব ছিলো। কিন্তু তিনি কঠিনকে ভালোবেসেছিলেন আপনাদের জন্য। সত্যিই বলছি আপনাদের জন্য। মির্জা আলমগীর এই ৭৩ বছরেও হতোদ্যম হননি।
আজকে এই জেলে তো কালকে ওই কোর্টে। শরীরটাও ভালো না। আমি তার মেয়ে-আমার দুশ্চিন্তার কোনও শেষ নেই। জিজ্ঞেশ করলেই আব্বু বলে, লড়াই আমাদের করতেই হবে শেষ পর্যন্ত। মির্জা আলমগীর বাসায় আমাদের যা বলেন, যে ভাষায় বলেন, আপনাদেরকেও ঠিক তাই বলেন- মন থেকে বলেন। তার চেহারা একটাই।
মির্জা আলমগীর বাসায় আমাদের যা বলেন, যে ভাষায় বলেন, আপনাদেরকেও ঠিক তাই বলেন- মন থেকে বলেন।
মির্জা আলমগীর প্রতিশোধের জন্য রাজনীতি করেননি। তিনি শুধু একটাই জিনিস চেয়েছেন সারা জীবন – গণতন্ত্র, সাধারণ মানুষের উন্নতির রাজনীতি।
বাংলাদেশের আজকের পরিস্থিতিটা খুবই সহজ আসলে, আপনি যদি চিন্তা করেন। হয় আপনি সাধারণ মানুষের বেঁচে থাকার অধিকারের পক্ষে, না হলে আপনি শহরের কিছু কোটিপতির আরো বড়লোক হওয়ার পক্ষে। হয় আপনি ইনসাফের পক্ষে, না হয় আপনি বিনা বিচারে মানুষকে হত্যার পক্ষে, রামদা আর হাতুড়ির পক্ষে।
ক্লিশে মনে হতে পারে কিন্তু আব্বুর সারা জীবন না হলেও অন্তত আমার সারা জীবনটুকু তিনি বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের জন্যেই দিয়েছেন। আজকে তার প্রয়োজন আপনাদের। আপনারা কেন ধরেই নিয়েছেন যে লুটপাট আর হত্যাই বাংলাদেশের একমাত্র পরিণতি।
আপনারা কি স্বপ্ন দেখতে ভুলে গেছেন? মানুষটা তার যৌবন দিয়েছেন এই দেশের সাধারণ মানুষের জন্য, এই শেষ বয়সে এসে ক্ষমতাধর আর লুটেরাদের বিরুদ্ধে লড়ছেন।
আমি বিশ্বাস করি বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়াবে। মির্জা আলমগীরকে সারা জীবনের রাজনীতি বৃথা যাবে না। আপনি আর আমি এই ঘুরে দাঁড়ানোর রাজনীতির অংশ হবো। আমরা আমাদের সন্তানদের এমন বাংলাদেশ দিয়ে যাব যেন তারা গর্ব বোধ করতে পারে। শুধু বাংলাদেশ স্বাধীন হলে চলবে না, বাংলাদেশের মানুষকেও স্বাধীন হতে হবে!’

এবিএনওয়ার্ল্ড/এফআর

চেক করুন

প্রথম ধাপে ৩৭১ ইউপিতে ১১ এপ্রিল ভোট : তফসিল ঘোষণা

প্রথম ধাপে ৩৭১ ইউপিতে ১১ এপ্রিল ভোট : তফসিল ঘোষণা

প্রথম ধাপে আগামী ১১ এপ্রিল দেশের ৩৭১টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) এবং ষষ্ঠধাপে ১১টি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ …

মঈনউদ্দীনকে চেয়ারম্যান

দুদক : মঈনউদ্দীনকে চেয়ারম্যান, জহুরুল হককে কমিশনার নিয়োগ

মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহকে চেয়ারম্যান এবং মো. জহুরুল হককে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কমিশনার হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে …