মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায় – ABNWorld
ঢাকা । বৃহস্পতিবার, ২৮ মে, ২০২০, ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী
হোম / পরিবেশ / মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায়

মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায়

মওসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায়

এবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে দেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়। সকাল ৯টায় পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৫ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকার আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন বলেন, তেঁতুলিয়ার এই তাপমাত্রা দেশের সর্বনিম্ন এবং এই মৌসুমের মধ্যে সর্বনিম্ন। আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, হিমালয়ের খুব কাছাকাছি জেলা হওয়ায় পঞ্চগড়ে সহজেই উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে হিমবায়ু প্রবেশ করে তাপমাত্রা কমে যাচ্ছে। গত বছর এই দিনে তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঘন কুয়াশায় আজ সকালবেলা হেডলাইট জ্বালিয়ে সড়কে যানবাহন চলতে দেখা গেলেও সকাল ৮টার পর দেখা গেছে সূর্যের মুখ। টানা ৪ দিন পর গত সোমবার পঞ্চগড়ে সূর্যের মুখ দেখা যাওয়ায় তাপমাত্রা কিছুটা বেড়েছিল।
তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগার সূত্রে জানা যায়, গতকাল বুধবার সকাল ৯টায় পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৬ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এটি সারা দেশের মধ্যে সর্বনিম্ন ছিল। তবে সারা দিন সূর্যের আলো থাকায় দিনের বেলা কিছুটা তাপমাত্রা বেড়েছিল। গতকাল সন্ধ্যায় তেঁতুলিয়ায় দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ২৩ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
এর আগে গত মঙ্গলবার সকালে তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা সারা দেশের মধ্যে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল বলে জানিয়েছিলেন আবহাওয়াবিদেরা। ওই দিন সন্ধ্যা ৬টায় তেঁতুলিয়ায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ২২দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
গত শীত মৌসুমে (২ জানুয়ারি ২০১৯) তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ৪ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা সারা দেশের মধ্যে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল। এর আগে ২০১৮ সালের ৮ জানুয়ারি তেঁতুলিয়ায় দেশের ইতিহাসের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছিল ২ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর ১৯৬৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি শ্রীমঙ্গলে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছিল।
তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রহিদুল ইসলাম বলেন, আকাশে মেঘ থাকলে তাপমাত্রা কিছুটা বৃদ্ধি পায়। এখন মেঘ কেটে যাওয়ায় দিনে রোদের দেখা মিলছে আর রাতের তাপমাত্রা কমে যাচ্ছে। এ ছাড়া মেঘমুক্ত আকাশ থাকলে উত্তর–পশ্চিম দিক থেকে হিমালয়ের হিমবায়ু সহজেই আসতে পারে। এতে রাতের তাপমাত্রা কমে যায়। এই হিমবায়ু দিনের বেলা এলেও সূর্যের তাপের কারণে সেটা দিনে কম অনুভূত হয়।
তাপমাত্র নেমে যাওয়ায় ওই অঞ্চলে রাতভর বৃষ্টির মত ঝরেছে কুয়াশা। হাড়কাঁপানো শীতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষ। মৃদু শৈত্যপ্রবাহে স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন। উত্তরের হিমেল বাতাসে কাবু হয়ে পড়েছে দেশের সর্ব উত্তরের এই জনপদের মানুষ।

এবিএনওয়ার্ল্ড/রোজা

চেক করুন

হোমিও ওষুধ হিসেবে এলকোহল বিক্রি : স্বামী-স্ত্রীসহ নিহত ৫

হোমিও ওষুধ হিসেবে এলকোহল বিক্রি : স্বামী-স্ত্রীসহ নিহত ৫

দিনাজপুরের বিরামপুরে হোমিওপ্যাথি’র ওষুধ হিসেবে বিক্রি করা বিষাক্ত এলকোহল পান করে স্বামী-স্ত্রীসহ ৫ জনের মৃত্যু …

সাধারণ ছুটি আর বাড়ছে না : অফিস আদালত খুলছে রবিবার

সাধারণ ছুটি আর বাড়ছে না : অফিস আদালত খুলছে রবিবার

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস মহামারীর বিস্তার রোধে গত ২৬ মার্চ থেকে শুরু হওয়া …